3 Stocks given 30 – 40% profit in 8 days কোন শেয়ার ৩০-৪০ % লাভ দিলো April 2020 | Share Market Course

নমস্কার আমি বিক্রম চৌধুরী, আরেকটা YouTube video নিয়ে এসেছি আপনাদের কাছে যাতে আমি দেখাচ্ছি বাজারে কোন কোন স্টক খুব ভালো জায়গায় আছে।

প্রথমে আমি আপনাদের ধন্যবাদ জানাতে চাই কারণ এই প্রথম আমার YouTube Subscriber এর সংখ্যা ১০০০ ক্রস করেছে, এইজন্য আমি আমার সমস্ত viewer , Youtube viewer, Facebook পেজ যারা follow করেন, এবং Youtube Channel তা যারা Subscribe করেছেন, তাদের সবাইকে আমার আন্তরিক শুভেচ্ছা, অভিনন্দন এবং কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি আমার এই chhanel তা visit করার জন্য ও subscribe করার জন্য।

আমি আপনাদের কাছে অশেষ ভাবে কৃতজ্ঞ এবং আপনারা যদি কিছু মাত্র উপকৃত হন এইসব ভিডিও দেখে আমি নিজেকে ধন্য মনে করবো।

যাই হোক আমি আমার একটা পুরোনো video র কোথায় প্রথমে আসি যেটা আমি কিছুদিন আগে আপনাদের share করেছিলাম আমার চ্যানেল এ। তাতে আমি কতগুলো স্টক এর কথা বলেছিলাম যার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে Hindustan Uniliver .

ভিডিও টা ১৩ই মার্চ 2020 পাবলিশ করেছিলাম, নাম ছিল “শেয়ার মার্কেট সাংঘাতিক পড়ছে, কিভাবে টাকা কয়েকগুন বাড়াবেন” ।

১৩ই মার্চ প্রকাশিত এই video তে আমি বলেছিলাম যে হিন্দুস্তান Uniliver খুব ভালো জায়গায় আছে, এবং এটা খুব ভালো জায়গায় যেতে পারে। তা এই video টা শুরু হবার ১৫ মিনিট মতো পরে ওই কথা বলা আছে।

তা আপনারা যদি হিন্দুস্তান লিভার এর চার্ট দেখেন এখন, উপরের ভিডিও তে দেওয়া আছে হিন্দুস্তান লিভার এর চার্ট। দেখুন already আমি যেমন বলেছিলাম হিন্দুস্তান লিভার কিন্তু ২৫০০ ক্রস করে গেছে। যদিও আমার ধারণাই ছিল না যে এতো তাড়াতাড়ি হিন্দুস্তান লিভার এই লেভেল টায় reach করবে।

হয়তো রিট্রেসমেন্ট এ কিছুটা নিচে আসবে আগামী দিনে, কিন্তু নিশ্চিতভাবেই হিন্দুস্তান লিভার খুব ভালো জায়গায় আছে।

১৩ই মার্চ নাগাদ, ২১০০ র কাছাকাছি বা ২২০০ র কাছাকাছি দাম ছিল। তখন আমি বলেছিলাম যে হিন্দুস্তান লিভার কিন্তু সেইভাবে পড়ছে না এবং এটা খুব ভালো জায়গায় আছে।

তার পরপরেই কিন্তু হিন্দুস্তান লিভার ১৮০০ লেভেল এ আসে। এবং সেটা খুব অল্প সময় এর জন্য, ১৭৭০ দামে আসে। এইযে ১৮০০ বা ১৭৬০ – ৭০ লেভেল, এই লেভেল এ কিন্তু একদিন ই মাত্র গেছিলো, তারপরে close করেছিল ১৮৩৬, তার পরের দিন ১৮৪৭ ওপেন করে চলে গেলো ২০০০ টাকা দামে, মানে ওই লেভেল এ যেদিন ই এলো তার পরের দিন এ jump করে ২০০০ এ গেলো।

এইসবদিনে মার্কেট খুব updown করছিলো, high volatility ছিল শেয়ার বাজারে। তারপরের দিন আবার ১৮৬৩ তে close হলো, LOW তে এসে। এখানে আরেকবার আপনাদের চান্স দিলো কেনার। তার পরের দিন আর আপনারা কেনার চান্স পেলেন না, দাম সোজা ২০০০ ক্রস করে CLOSE হলো।

এইসময়ও যারা কিনতে পারতেন, তাদের একটা কেনার সুযোগ ছিল, কিন্তু যারা পারেন নি তারা মিস করে গেলেন। এরপর ২৫০০ ক্রস করে ২৬০০ ছুয়েঁ প্রায় ২৪৬০ এ close করেছে ।

এইরকম সাংঘাতিক জাম্পিং শুরু করে দিয়েছে হিন্দুস্তান ইউনিলিভার। আমি আশা করেছিলাম হিন্দুস্তান ইউনিলিভার ২৪০০ – ২৫০০ যাবে, কিছুটা time নেবে। ১৮০০ লেভেল এ এই শেয়ারটি ছিল ৩ দিন, কিন্তু আপনাদের সুযোগ ছিল খুব ভালো প্রাইস এ acumulate করার এই স্টক টাকে। কিন্তু এতোভালো স্টক যে মুহূর্তে এই দামে এসেছে, সেই মুহূর্তে পরের দিন JUMP করে বেরিয়ে গেছে।

২ দিন মাত্র এই opportunity ছিল আপনাদের, এবং যারা এগুলো accumulate করার তারা করে নিয়েছেন।

এগুলো একদম জ্যাকপট প্রাইস, যেটা আমি আগের ভিডিও তে বলেছিলাম। এগুলো সাধারণত পাওয়া যায় না, এরকম মার্কেট এর জন্য আপনারা পেয়ে গেছিলেন। ১৮৫০, ১৮০০ এর নিচে এসব লেভেল অকল্পনীয়, তার থেকে ৭০০ টাকা উঠে গেছে। ভাবুন যারা কিনেছেন ১৮০০ টাকায় তারা ৭০০ টাকা profit করবেন প্রতি শেয়ার এ , যারা এখানে এটাকে বেচে দিয়ে প্রফিট বুক করবেন । প্রায় ৩৮% প্রফিট।

ভাবতে পারেন, মাত্র কয়েকটা দিন, ১০ দিনে তারা ৩৮% return of investment পেতেন হিন্দুস্তান লিভার এ।

শুধু হিন্দুস্তান লিভার এ নয়, আরেকটা স্টক ও আমি আমার সেই video টায় বলেছিলাম, ১৩ ই মার্চ প্রকাশিত ভিডিও এ বলেছিলাম bharat petroleum এর কথা।

আমি ভারত পেট্রোলিয়াম এর কথা বলেছিলাম ২৬০ যদি পান তবে জ্যাকপট। দেখুন ২৬০ – ২৫০ কিন্তু পেয়েছিলেন, ৫ দিন মতো ২৭০ এর নিচে ছিল, ২৫০ পর্যন্ত নেমেছিল শেয়ারের দাম (Bharat Petroleum) ।

মনে রাখবেন ভারত পেট্রোলিয়াম কিন্তু ৫৫০ গেছিলো। ৪.১০.২০১৯ এ দাম ছিল ৫৫০, ২০.১১.২০১৯ এ দাম ছিল ৫৫০, এই value তে ছিল, সেখান থেকে ২৬০ মানে half এর ও কম দামে নেমেছিল BPCL শেয়ারের দাম ।

২৬০ – ২৫০ ভাবতে পারেন কতটা কম প্রাইস, যারা এই দামে কিনেছিলেন, তারা আজকে কিন্তু ৩৫০ এ বেচে দেওয়ার সুযোগ পেয়েছেন। hold করে রাখলে এই শেয়ারটি ভবিষ্যতে আরো উপরে যেতে পারে, কিন্তু যারা HOLD করবেন না তারা মোটামুটি ১০০ টাকা মতন লাভ পেয়ে গেছেন যদি ২৫০/২৬০ টাকায় শেয়ার কিনে থাকেন।

যিনি ২.৫ লক্ষ টাকা ইনভেস্ট করবেন, তিনি ১ লক্ষ টাকা প্রফিট পেয়ে যাবেন মাত্র ১০ দিনে যদি ২৬০ – ২৫০ টাকায় শেয়ার কিনে থাকেন। এইরকম যে যেমন ইনভেস্ট করবেন, proportionately সে সেইরকম লাভ পেয়ে যাবেন।

বুঝতে পারছেন আমি যেটা বলেছিলাম ২৭০ – ২৬০ যারা পাবেন তারা কিন্তু অতি ভাগ্যবান, এবং যারা জানেন এই price level গুলো সম্পর্কে তারা কিন্তু এইসব দামে কিনে নেন।

ভারত পেট্রোলিয়াম একটা উচ্চ গতিসম্পন্ন স্টক। এর ভালো momentum আছে এবং একটা রেঞ্জ এর মধ্যে up -down করে, এরকম ২৫০/২৭০ লেভেল কিন্তু অনেকদিন বাদে, ১ / ১.৫ বছর বাদে আসে। অত ফ্রেকুয়েন্ট কিন্তু এসব লেভেল গুলো আসে না। তা এখনো যদি আপনারা ভবিষ্যতে ৩০০ বা ৩০০ র নিচে পান খুবই ভালো, কিনে রাখবেন, লগ্নি করে রেখে দেবেন, তাতে ভবিষ্যতে অনেক টাকা পাবেন।

অলরেডি কত টাকা পাওয়া গেছে ভারত পেট্রোলিয়াম এ একটু হিসেবে করে ফেলি, (৩৫০-২৬০)=৯০/২৬০=৩৪%. ভেবে দেখুন ৩৪ % রিটার্ন অফ ইনভেস্টমেন্ট ৮ দিনে। এইরকম মার্কেট যখন এতো down তখনো কিন্তু ৩৪ % । ৩৪ % না হলেও ২৪% -২৫ % ও যদি পান সেটাও অনেক। সেটাই মাত্র ৮ – ১০ দিনে।

৮ – ১০ দিনে হিন্দুস্তান লিভার দিচ্ছে ৪০%, BPCL ভারত পেট্রোলিয়াম এ পেয়ে গেছেন ৩০% এর ওপর। তো চিন্তা করতে পারছেন, এবার আরেকটা স্টক এর কথা বলি। ভারত পেট্রোলিয়াম কথা কিন্তু আমি আমার আগের ভিডিও টায় বলেছিলাম।

আর যেটা বলিনি সেটা হচ্ছে Lupin এর কথা। Lupin টা একবার দেখাই আপনাদের। এটা একটা pharma স্টক, অনেকে জানেন বোধয়, অনেকে নাও জানতে পারেন। লুপিন মোটামুটি ৮০০ থেকে ৭০০ বা ৭০০ এর নিচে, ৬৫০লেভেল এ এলে আমার student দের কিনতে বলি, অনেকদিন ধরে downtrend এ আছে Lupin .

১৪০০ টাকার কাছাকাছি দাম ছিল একটা সময়। তা যাই হোক, এরকম পড়তে পড়তে লুপিন কিন্তু ৫৩০ touch করেছিল, এবং সর্বনিম্ন দাম পড়েছিল ৫০৮, যা আগে অন্তত পাওয়া যায় নি। ৫৫০ যদি প্রাইস টা ধরেন সেটা খুব ভালো প্রাইস। ৫৫০ এসেই কিছুদিনের মধ্যে ৬৬১ চলে গেছিলো। আবার ৫৫০ touch করলো, করে একদম বেরিয়ে গেলো , গতকাল highest গেছিলো ৭৩৮, close হয়েছে ৭০৪ ।

তাহলে ভাবুন ৫৫০ থেকে ৭৩০ যদি কেউ ইনফ্লেশন নিতে পারে তবে তার লাভ হয়ে যাচ্ছে (৭৩০-৫৫০)=১৮০/৫৫০=৩২ % । ৩২ র জায়গায় ২৫% ও profit করতে পারেন যারা জানেন এই স্টক গুলো সম্পর্কে। তাহলে দেখুন লুপিন ও কিন্তু কিনে রাখলে খুব অল্প দিনের মধ্যে ৩০% এর ওপর profit পাওয়া যেত। লুপিন বেশ কয়েক বার chance দিয়েছে, ৫৬০ – ৫৫০ এসব জায়গায় যারা কিনতে পেরেছেন তারা কিন্তু ৬৫০ তে বিক্রি করে দিতে পেরেছেন। আবার পড়ে এসেছে, আবার কিনে নিয়েছেন, তারপর দেখুন কোথায় চলে গেছে।


তাহলে বুঝতেই পারছেন একটু বুদ্ধি করে যদি এইসব স্টক কিনে রাখা যায়, বা একটু কয়েকদিন hold করে কেনা বেচা করা যায়, তবে কত প্রফিট আস্তে পারে।

তা আমি যেগুলো আগেই বলেছিলাম আবার বললাম, হিন্দুস্তান লিভার সম্বন্ধে আমি খুব আশাবাদী, ৩০০০ / ৪০০০ ভবিষ্যতে যাবে। লগ্নি যারা করতে পারেন , তলায় এলে লগ্নি করবেন এবং ভবিষ্যতে খুবই লাভ করতে পারবেন তারা।

আমি আরো কিছু স্টক নিয়ে পরে ফিরে আসবো।

যারা জেনে বুঝে লগ্নি করতে চান, তারা অবশ্যই আমার সাথে যোগাযোগ করতে পারেন, ফোন number দেওয়া আছে। Click here for Share Market Investment Tips & Advice

Published by Share Market Training Kolkata

Welcome to the share marker courses of Bikram Choudhurys conducted in Kolkata. Also live online share trading courses are available for all India students. These stock market courses has been designed for beginners to stock market. Because most beginners in share market trading start with big losses. So Mr Choudhury wants to educate them - how to minimize losses and maximize profit in share market